‘জীবনাকাশের সূর্য’

[সাতাশ পদ]
আজ একটু গপসপ করতে চাই,
আপনাদের সময় আছে তো?
বিমনা মনে অনেক কষ্ট,
বুকের ভিতর আনচান আনচান ভাব,
জানি না কেন এ অস্থিরতা?
নির্জন নিরলায় যেয়ে বসতে চাই,
আত্মায় জমা কষ্ট নোনা জলে ভাসাতে,
সময় কি হবে?
জানেন, মানব জীবন সত্যি কৌতূহলোদ্দীপক।
ব্যাঙাচি আদলের শুক্র থেকে শুরু, শেষ হয় লম্বা হয়ে শোয়ে,
সত্য জেনে এবং বাস্তবতা দেখে আমি হতবাক!
চোখে রাজ্যের বিস্ময়,
সবকিছু কেমন যেন বুদ্ধির বার,
দিনরাত চিন্তা করেও আয়ত্তে আনতে পারি না,
বিমনা মনকে নিয়ে দায়ে ঠেকেছি।
গন্তব্য কোথায় জানি, পথ সত্যি অত্যন্ত দূর্গম,
জীবনাকাশের সূর্য মধ্যাকাশ পাড়ি দিয়েছে,
বেলা এখন ভাটি,
মন মাঝি বৈঠা তুলে গলুইয়ে লম্বা হয়ে শোয়ে বলছে,
তুই নাও বা।
আমি বিশ্বাস করি সবাই সুখ চায়,
বিফলতা বলতে কিছু নেই, আছে শুধু সফলতা,
সরল রেখায় আমাদের জীবন শুরু হয়,
পরে আস্তেধীর মোড় বদলে,
আম গাছে বসে কুটুম পাখিরা কুটুম কুটুম ডাকে,
কুটুমের মুখ এখন আর দেখা হয় না,
চিন্তায় আছি আমি চিন্তক হতে চাই না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *