ধর্মের মালিক

আমার জন্ম গ্রামে হয়েছে এবং গ্রামে আমার কৈশোর কেটেছে। রাতে চাঁদ আমার সাথে থাকতো। চোখে যতটুকু দেখতাম ততটুকুই দুনিয়া অথবা পৃথিবী। ছোটদাদির বাড়ি থেকে বড়দাদির বাড়ি আরেক ক্রোশ দূর ছিল। নিজেকে রাজা ভাবতাম। নানাবাড়ি এবং ফুফুদের বাড়িতে আমার এক খুন মাফ ছিল। তারপর বাবা আমাদেরেক নিয়ে সিলেট যান। সর্বনাশ, পৃথিবীতো খালি বড় হয়! সিলেট আসার পর ঝামেলা শুরু। প্রতিদ্বন্দী বেশি এবং সবকিছুতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হয়। তারপর আসলাম লন্ডন। আসার পথে বাতাসে ভেসে আকাশ দেখেছি।
লন্ডন আসার পর বয়সের সাথে অভিজ্ঞতাও বাড়ে, আস্তেধীর বাস্তবিক হই।
অধার্মিকরা পাপ করে। ধার্মিক হতে হলে পাপমোচন করতে হয়।
ধর্মালয় অনেকের জন্য অভয়ারণ্য।
ছোট পাপ করলেও ধর্মিষ্ঠরা পাপিষ্ঠ হতে পারে না।
পৃথিবীতে অনেক দেশ এবং ধর্ম আছে। বালাংদেশের মহাবিজ্ঞরা কী মনে করেন তা আমি জানি না। উনাদের লেখা পড়ে এবং উনাদের হাবভাবে মনে হয়, পৃথিবীর সকল পাপী বাংলাদেশে। অন্যরা নিষ্পাপ শুধু মুসলমানরা পাপিষ্ঠ। ধর্মগুরুরা ধর্মালয়ে থাকে। ধর্মিষ্ঠ হওয়ার জন্য ধার্মিক ধর্মলয়ে যায়। ধার্মিকরা বিশ্বাস করি ধর্মলয়ে ধর্মের মালিক থাকেন। ধর্মগুরুরা ধর্মের মালিক নয়। সৃষ্টিকর্তা হলে ধর্মের মালিক।
মসজিদ শুধু ধর্মালয় নয় এবং সকল ইমাম, হুজুর এবং মোল্লারা ধর্মিষ্ঠ নয়।
মানুষের ভুল হয়, মারাত্মক ভুল হয়, অমার্জনীয় ভুল হয়।
নরকের আরবি জাহান্মাম। জান্নাতের বাংলা স্বর্গ।
থাক আর লিখে অন্যের চুকলি করে চুকলিখোর হতে চাই না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *